Facebook
Kolorob / কলরব | রাজার গল্প
16436
single,single-post,postid-16436,single-format-standard,ajax_fade,page_not_loaded,,qode-title-hidden,side_menu_slide_from_right,qode-theme-ver-9.2
dsc_0939

রাজার গল্প

 

মিরপুর ১১ নিবাসী ১৮ বছর তরুন রাজা জন্মবার পর থেকেই এ এলাকাতে বাস করছে। সে ২০১৬ সালে এইচ.এস.সি পরীক্ষা দিয়েছে এবং কিছুদিনের মধ্যেই বিশ্য্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হবে এবং বর্তমানে সে পার্ট-টাইম চাকরীর সাথে যুক্ত আছে। সে মিরপুর এলাকায় থাকতে ভালবাসে। ৩ ভাই ও ৪ বোনের মাঝে রাজা চতুর্থ। সে অনসর সময়ে বন্ধুদের সাথে সময় কাটাতে ভালোবাসে।

 

আমি আমার চারপাশের এলাকা সম্পর্কে খুব ভালো জানি। ছোটবেলায় এখানে স্কুল পাওয়া যেত না, কিন্তু এখন সবখানে স্কুল আছে। আমার এলাকায় খেলার মাঠের কমতি থাকায় শিশুরা প্রায়ই রাস্তায় খেলাধুলা করে এবং বিভিন্ন দুর্ঘটনার শিকার হয়। এমনকি বিনামূল্যে চিকিৎসা নেবার জন্য এলাকায় কোন সরকারি হাসপাতাল নেই। যখন বৃষ্টি হয় তখন পানি চলাচলের ভালো ব্যবস্থা থাকে না। আর এ সমস্যাগুলো আমার একার পক্ষে সমাধান করা সম্ভব না।

 

রাজা একজন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী। সে সবসময় ইন্টারনেট ব্যবহার করে এবং তার প্রিয় এ্যাপগুলো হল ফেইসবুক, ইমো, ভাইবার, কলরব ইত্যাদি। কোন জায়গা সম্পর্কে তথ্য জানতে সে গুগলে সার্চ করে ও গুগল ম্যাপের সাহায্যে তা খুজে বের করে। একবার বাবু বাজার এলাকায় ফায়ার সার্ভিসের হেড অফিস খোঁজার প্রয়োজন হলে রাজা গুগল ম্যাপ থেকে সাহায্য নেয় এবং সেখানে পৌঁছায়। রাজা মনে করে, কোন একটি সেবা বিচার করতে গেলে তা সম্পর্কে সম্পুর্ন তথ্য থাকা প্রয়োজন। এছাড়াও সাধারন মানুষ সেখান থেকে ভাল সেবা পায় তবে তা সম্পর্কে জানাতে পারে।

 

আমি আমার চারপাশের এলাকার জনপ্রিয় স্কুল, যেমন- বাংলা স্কুল ও জনতা স্কুল, জনপ্রিয় হাসপাতাল, ফায়ার ইত্যাদি সম্পর্কে জানি। কলরব আসার আগে আমি বিভিন্ন পরিচিত স্কুল সম্পর্কে শুনেছিলাম কিন্তু জানতাম না যে সেগুলো কোথায়, কিন্তু এখন কলরবে আমি তা খুঁজে বের করতে পারি। আগে কোন সেবা খুঁজতে আমি আমার প্রতিবেশীদের জিজ্ঞাসা করতাম। কিন্তু মানুষের মুখের কথায় কখনো তেমন নির্ভরযোগ্য তথ্য পাওয়া যায় না। যদি আমার ৪ নাম্বার লাইন খোঁজার দরকার হয়, লোকজন দেখা যায় অন্য লাইনের দিক বলে দেয়।

 

রাজা মনে করে, কলরব তার এলাকার মানুষকে সাহায্য করবে। কিন্তু সে জন্য এটি সকলের মোবাইলে থাকা প্রয়োজন। কলরব বর্তমানে পুরো মিরপুর এলাকা জুড়ে কাজ করছে, রাজা মনে করে- তা পুরো বাংলাদেশ জুড়ে কাজ করলে আরো ভালো হত। তার কাছে কলরব এ্যাপটি খুব সহজ মনে হয়।

 

উদয়ন স্কুলে হওয়া অনুষ্ঠান থেকে আমি কলরব সম্পর্কে জানতে পারি এবং ডাউনলোড করি। আমি এটি প্রতিদিন ব্যবহার না করলেও শিক্ষা ও স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্য জানতে আমি কলরব ব্যবহার করি। শেষবার আমি কলরব ব্যবহার করার সময় বন্ধুদের দেখিয়েছি, মেরি স্টোপস ক্লিনিক এর অবস্থান সম্পর্কে জেনেছি। আমি আমার বন্ধুকে কলরব ডাউনলোড করতে সাহায্য করেছি।

 

অনেক মানুষ আছে যারা সকল সেবা প্রতিষ্ঠানের তথ্য জানে না, কলরবের মাধ্যমে তারা এ সুবিধা পেতে পারে- এর মাধ্যমে প্রয়োজনীয় তথ্য জানতে পারবে। রাজা বাউনিয়াবাধ এলাকায় অবস্থিত কলরব কিয়স্ক (তথ্য কেন্দ্র) এ গিয়েছিল। কলরবের একটি অনুষ্ঠানে কলরব সম্পর্কিত একটি নাটিকা পরিবেশিত হয়েছিল, রাজা মনে করে- এ ধরনের নাটিকা সাধারন মানুষের জন্য খুব উপকারি, এগুলো কোন টিভি চ্যানেলের মাধ্যমে প্রচার করা গেলে মানুষ কলরব সম্পর্কে আরো জানতে পারবে। রাজার নিজ এলাকার মানুষজনকে ঘিরে কিছু স্বপ্ন আছে, রাজা মনে করে যে সে স্বপ্ন পুরনে কলরব তাকে সাহায্য করতে পারবে।

 

আমার স্বপ্ন পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর হওয়া। আমার এলাকার অনেক শিশু অর্থাভাবে পড়াশোনা করতে পারে না, তাদের কাজ করতে হয়। আমি এখানে একটি স্কুল প্রতিষ্ঠা করতে চাই যাতে গরিব শিশুরা বিনামূল্যে পড়াশোনা করতে পারে। আমি দেখেছি- কিছু সংখ্যক শিশুর বিনামূল্যে প্রাথমিক শিক্ষা লাভ করলেও তারা শুধুমাত্র নিজের নাম লিখতে পারে, এবং প্রাথমিক শিক্ষার পর আবার কাজে ফিরে যায়। শিশুদের শিক্ষামুখী করে তুলতে আমরা ৫ বন্ধু মিলে একটি কোচিং সেন্টার খুলেছি যেখানে পঞ্চম থেকে অষ্টম শ্রেনী পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের ফ্রি পড়ানো হয়। এখানে বেশ কিছু সংখ্যক শিশু পড়তে আসে। আমাদের কোচিং এর নাম “এস.এম.আর” (শামিম, মামুন ও রাজা), এখানে আমাদের ৩ জন বন্ধুর নাম আছে। মূলত আমরা ৩ জনই এই কাজ প্রথম শুরু করি, পরে আমাদের আরো ২ বন্ধু যোগ দেয়। বর্তমানে এখানে ৩৫ জন ছাত্রছাত্রী পড়াশোনা করছে এবং আমরা তাদেরকে বিকাল ৫ টা থেকে দু’ঘন্তার জন্য পড়াই। আমি এধরনের কাজ করতে খুব পছন্দ করি। আমরা যে জায়গায় এখন পড়াই তা ছাত্রছাত্রীর সংখ্যার তুলনায় অনেক ছোট, এটা আমাদের এক বন্ধুর জায়গা তাই এ জন্য আমাদের কোন আলাদা খরচ হয় না।

 

রাজা অনেকদিন ধরে মিরপুরে থাকায় তার চারপাশের পরিবেশ সম্পর্কে জানে। প্রতিনিয়ত বিভিন্ন ধরনের সেবাপ্রতিষ্ঠান বৃদ্ধি পাচ্ছে। তাই সব প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ধারনা রাখা অত্যন্ত কষ্টসাধ্য, বিশেষ করে জানা দরকার হয় যে কোন সেবা কোথায় অবস্থিত। এক্ষেত্রে কলরব মিরপুর এলাকার মানুষজনকে সে সুবিধা দিচ্ছে যাতে মানুষ জরুরি সেবা গুলো ও তার সেবার বৃত্তান্ত সম্পর্কে জানতে পারে।

 

No Comments

Post A Comment